বিশ্ব ক্রিকেট অন্ধকারাচ্ছন্নময়, নাবালিকা ধর্ষনে দোষী সাব্যস্ত হয়ে আট বছরের জেল নেপালের সন্দীপ লামিছানের

কয়েকদিন আগেই প্রাক্তন নেপাল অধিনায়ক সন্দীপ লামিছানের বিষয়টি সত্যি বলে জানা গেছে। সেই অনুযায়ী আজ তার শাস্তিও জানিয়েছে সে দেশের আদালত।

নেপালের ক্রিকেট দলের (Nepal Cricket Team) তারকা এবং প্রাক্তন অধিনায়ক সন্দীপ লামিছানের (Sandeep Lamichhane) বিরুদ্ধে ২০২২ সালের ২১ আগস্ট নেপালের রাজধানী কাঠমান্ডুতে একটি হোটেল রুমে এক ১৮ বছরের নাবালিকাকে ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছিল। যার কারণে লামিছানেকে বেশ কিছুসময় হাজতবাসও করতে হয়েছিল। নেপাল ক্রিকেট দল থেকেও বেশ কিছু সময়ের জন্য নির্বাসিতও করা হয়েছিল তাকে। তখন সেই বিষয়টিকে ষড়যন্ত্র এবং মিথ্যা অভিযোগ বলে অভিহিত করেছিলেন তিনি নিজেই। এরপর জামিন পেয়ে ছাড়া পাওয়ার পরে আবারও জাতীয় দলে ফিরেছিলেন তিনি। একসময় আইপিএলে দিল্লি ক্যাপিটালসের (Delhi Capitals) হয়ে খেলতেন লামিছানে।

আজ থেকে দিন-কয়েক আগেই ওই ধর্ষণের ঘটনার দায়ে কাঠমান্ডু জেলা থেকে দোষী সাব্যস্ত করেছে লামিছানেকে। কাঠমান্ডু জেলা আদালতের বিচারপতি শিশির রাজ ধাকাল (Sishir Raj Dhakal) ওই নির্দেশ দিয়েছিলেন। কয়েকদিন আগেই তা সত্যি বলে জানা গেছে। ওইদিন জানানো হয়েছিল পরের শুনানিতে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে কত দিনের জেলের সাজা হবে লামিছানের।

আজ ANI সংবাদ সংস্থার রিপোর্ট থেকে জানা গেছে, পরের শুনানি অনুযায়ী এই নেপাল তারকাকে দীর্ঘ ৮ বছরের জন্য সাজা শুনিয়েছে নেপালের আদালত। ৮ বছর হাজতবাস করতে হবে তাকে। এর আগে সমস্ত কিছু জামিনের কারণে ছাড় পেয়ে গেলেও, আবার পুনরায় শাস্তির শিকার হয়েছেন তিনি। নাবালিকাকে ধর্ষণের দায়ে এবারের শাস্তিটি বেশ দীর্ঘ।

গতবছর ১২ জানুয়ারি নেপালের পটন হাইকোর্ট থেকে জামিনের কারণে মুক্তি পেয়েছিলেন লামিছানে। নেপালের টাকায় ২০ লক্ষ টাকায় জামিনে মুক্তি পেয়েছিলেন তিনি।অন্যদিকে গ্রেফতার হওয়ার আগে লামিছানে জানিয়েছিলেন, তিনি পুলিশের সঙ্গে সমস্ত সহযোগিতা করতে রাজি রয়েছেন। আইনি পথেই বিষয়টি খতিয়ে দেখে নিতে চান তিনি। এমনকি সেইসময় লামিছানে বিষয়টিকে চক্রান্তের শিকার বলেও দাবি করেছিলেন।