আবার মাঠে ফিরলেন শচীন-যুবরাজ সহ পাঠান ব্রাদার্স, OWOF Cup- এ‌ শেষমেশ ইউসুফের বলে ছক্কা মেরে ম্যাচ জিতালেন ইরফান

ম্যাচের দ্বিতীয় ইনিংসে ১৮০ রান তাড়া করতে নেমে নেমে শচীন তেন্ডুলকারের দল দ্রুত রান সংগ্রহ করতে থাকে।

গতকাল ভারতীয় দলের তরুণ ক্রিকেটাররা আফগানিস্তানের (India vs Afghanistan Series) বিপক্ষে দুর্দান্ত পারফরম্যান্স করে জয় ছিনিয়ে এনে দিয়েছে। অন্যদিকে আজ ভারত সহ বিশ্বের কিংবদন্তি প্রাক্তন ক্রিকেটাররা মাঠে নিজেদের পুরনো মহিমায় ফিরে গেলেন। এর সঙ্গেই ম্যাচে আবারও ইউসুফ পাঠান (Yusuf Pathan) এবং ইরফান পাঠান (Irfan Pathan) একসঙ্গে দুই ভাইয়ের মন ভালো করা ছবি সামনে এলো।

আজ অর্থাৎ ১৮ জানুয়ারি বৃহস্পতিবার বেঙ্গালুরুর কেম্পেগৌড়া আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের কাছে সাই কৃষ্ণান ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ওয়ান ওয়ার্ল্ড ওয়ান ফ্যামিলি কাপে (One World One Family Cup) দুই দল মুখোমুখি হয়। ম্যাচে প্রথমে শচীন তেন্ডুলকারের (Sachin Tendulkar) নেতৃত্বাধীন ওয়ান ওয়ার্ল্ড টসে জিতে বোলিং করার সিদ্ধান্ত নেয়। এর ফলে যুবরাজ সিংয়ের (Yuvraj Singh) নেতৃত্বে ওয়ান ফ্যামেলি দুরন্ত ব্যাটিং শুরু করে।

তারা ২০ ওভারে ৬ উইকেট হারিয়ে মোট ১৮০ রান সংগ্রহ করে নেয়। দলের হয়ে ড্যারেন ম্যাডি (Darren Maddy) দুরন্ত একটি অর্ধশতরান করেন। এছাড়াও ইউসুফ পাঠানের ব্যাট থেকে ৩৮ এবং যুবরাজ সিংয়ের (Yuvraj Singh) ব্যাট থেকে ২৩ রান আসে। অন্যদিকে ওয়ান ওয়ার্ল্ডের হয়ে হরভজন সিং (Harbhajan Singh) ৩০ রান দিয়ে গুরুত্বপূর্ণ ২ উইকেট তুলে নেন।

অন্যদিকে দ্বিতীয় ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে শচীন তেন্ডুলকারের দল দ্রুত রান সংগ্রহ করতে থাকে। আলভিরো পিটারসেন (Alviro Petersen) ৫০ বলে ৭৪ রানের একটি দুর্দান্ত ইনিংস খেলেন। বিশ্ব ক্রিকেটের অন্যতম কিংবদন্তি শচীনে তেন্ডুলকার ব্যাট হাতে নিজের ছন্দেই ছিলেন। তিনি ওপেনিং করতে এসে ৩ টি চার এবং ১ টি ছয়ের মাধ্যমে ১৬ বলে ২৭ রানের একটি ইনিংস খেলেন।

অন্যদিকে ওয়ান ওয়ার্ল্ডের এক সময় ২ বলে ৩ রান দরকার ছিলো। সেই সময় ইউসুফ পাঠানের করা বলে তার ভাই ইরফান পাঠান ছয় মেরে ম্যাচটি জিতিয়ে দেন। ঠিক তখন মাঠের মধ্যেই তারা একে অপরকে জড়িয়ে মজা করতে থাকেন। এই ছবি সামনে আসতেই এখন সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হয়েছে।

ওয়ান ওয়ার্ল্ড বনাম ওয়ান ফ্যামেলি ম্যাচ

ওয়ান ফ্যামেলি- ১৮০/৬ (২০ ওভার)

ড্যারেন ম্যাডি- ৫১ (৪১)

ওয়ান ওয়ার্ল্ড- ১৮৪/৬ (১৯.৫ ওভার)

আলভিরো পিটারসেন- ৭৪ (৫০)