Lionel Messi: চারটি এমন অবাক করা কারণ যার জন্য মেসি আল হিলাল ছেড়ে ইন্টার মিলানে যোগ দিলেন

৩৫ বছর বয়সী কিংবদন্তি ফুটবলার লিওনেল মেসি (Lionel Messi) পিএসজি (PSG) ছাড়ার পরে নতুন দলে‌ যোগ দেওয়ার বিষয়ে বার্সেলোনা (Barcelona) এবং আরবের ক্লাব আল হিলালের নাম এগিয়ে ছিল। সৌদি আরবের ক্লাবটি মেসিকে বিশাল অঙ্কের টাকা প্রস্তাব দেয়। তবে তিনি সেই প্রস্তাব নাকচ করে দিয়ে যোগ দিলেন যুক্তরাষ্ট্রের ক্লাব ইন্টার মিয়ামিতে (Inter Miami)। জানুন মূল ৪ টি বিষয় যে কারণে আল হিলালের মতো ক্লাব ছেড়ে মেসি ইন্টার মিয়ামিতে যোগ দিলেন।

১) প্রথমত মিয়ামি আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্রের একটি অতি উন্নত অঞ্চল। প্রযুক্তিগত উন্নয়নের সঙ্গে সঙ্গে এই অঞ্চল ফুটবলের একটি কেন্দ্র হিসাবে আত্মপ্রকাশ করছে। তাছাড়া এই অঞ্চলে আর্জেন্টাইন সম্প্রদায়ের সংখ্যা যথেষ্ট বেশি। এখানে মেসির নিজস্ব বিশাল বাড়িও আছে। এছাড়াও এই অঞ্চলে ২০২২ সালে নিজের পরিবারের একটি কোম্পানিও খুলেছেন তিনি। অন্যদিকে সৌদি আরবে মহিলাদের প্রতি কঠোর নিয়ম এবং খেলাধুলার ক্ষেত্রে মানবাধিকার লঙ্ঘনের জন্য লাভজনক চুক্তি স্বাক্ষর করেননি মেসি।

২) ইন্টার মিয়ামির চুক্তির সঙ্গে অবসরের পর ক্লাবের অংশীদার হিসাবে মেসির কাছে একটি বিকল্প খোলা থাকছে। ২০০৭ সালে মিয়ামির সঙ্গে ডেভিড বেকহ্যামের চুক্তির কথা অনেকে মনে করিয়ে দিচ্ছেন। তিনি এখন এই ক্লাবের মালিকানা গ্রুপের সবচেয়ে স্বীকৃত মুখ। মেসির সাথেও ভবিষ্যতে এইরকম কিছু ঘটলে যুক্তরাষ্ট্রের ফুটবল আরো গর্বিত হবে। অন্যদিকে আরবের ক্লাবটি বিশাল পরিমাণ অর্থের প্রস্তাব দিলেও এইরকম চুক্তির কোনো উল্লেখ ছিলো না বলেই মনে‌ করছেন বিশেষজ্ঞরা।

৩) মিয়ামি ক্লাবের সঙ্গে বহু বছর ধরে অ্যাপেলের মতো কোম্পানির অংশীদারিত্ব আছে। ফলে এইরকম ব্র্যান্ড কোম্পানি সঙ্গে একাধিক বিজ্ঞাপনের লাভ তুলতে পারেন মেসি। এছাড়া ২০২৬ ফুটবল ওয়ার্ল্ড কাপ আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্রে হওয়ার কারণে মেসি‌ অ্যাপেল ও মিয়ামি ক্লাবের হয়ে অন্যতম মুখ হয়ে উঠতে পারেন। অন্যদিকে ২০০৬ সাল থেকে মেসির সঙ্গে অ্যাডিডাসের সঙ্গে সম্পর্ক এক ক্লাবের সাথে যুক্ত হলে আরও ভালো হবে।

৪) লিওনেল মেসি সব সময় উচ্চপর্যায়ের প্রতিযোগিতায় খেলতে চেয়েছেন। যদিও সৌদি প্রো লিগ ইউরোপীয় প্রতিভাবাদের নিজেদের দলে নিয়ে উচ্চমানের প্রতিযোগিতা তৈরি করার চেষ্টা করছে। কিন্তু তারা এখনো এমএলএসের মতো স্তরে পৌঁছায়নি। তাই সৌদি আরবের চেয়ে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের এই ক্লাবটিকে অনেকটাই এগিয়ে রেখে তিনি বেছে নিয়েছেন বলে মনে করা হচ্ছে।