Rohit Sharma: এবার কি সত্যিই সময় শেষ রোহিতের? প্রতিবারের মত নকআউট ম্যাচে আবার ব্যর্থ রোহিত

বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে (WTC Final) প্রথমে ব্যাট করে স্কোরবোর্ডে ৪৬৯ রান তোলে অস্ট্রেলিয়া। পাহাড় সমান স্কোরের জবাবে ভারতীয় ভক্তরা তাদের তারকা ব্যাটসম্যানদের কাছ থেকে অনেক আশা করেছিলেন। বিশেষ করে অধিনায়ক রোহিত শর্মা (Rohit Sharma), যার ব্যাট দীর্ঘদিন নীরব। কিন্তু ওভাল গ্রাউন্ডে ক্যাঙ্গারু বোলারদের সামনে হাঁটু গেড়ে বসলেন হিটম্যান। ২৬ বলে মাত্র ১৫ রান করে দলকে বিপদে ফেলে দেন তিনি। ষষ্ঠ ওভারে রোহিত আউট হয়ে যান যখন স্কোর ছিল মাত্র ৩০ রান। বিরোধী দলের অধিনায়ক প্যাট কামিন্স (Pat Cummins) দুর্দান্ত বলে ভারতীয় অধিনায়ককে এলবিডব্লিউ আউট করেন। এই বলের কোনও জবাব ছিল না রোহিতের কাছে।

এক নজরে দেখুন নকআউট ম্যাচে রোহিতের প্রদর্শন

২০০৭ বিশ্বকাপ- সেমিফাইনাল, ৮(৫)
২০০৭ বিশ্বকাপ- ফাইনাল, ৩০(১৬)
২০১৩ চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি – সেমিফাইনাল, ৩৩(৫০)
২০১৩ চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি – ফাইনাল, ৯(১৪)
২০১৪ বিশ্বকাপ- সেমিফাইনাল, ২৪(১৩)
২০১৪ বিশ্বকাপ- ফাইনাল, ২৯(২৬)
২০১৫ বিশ্বকাপ- সেমিফাইনাল, ৩৪(৪৮)
২০১৬ বিশ্বকাপ – সেমিফাইনাল, ৪৩(৩১)
২০১৭ চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি – সেমিফাইনাল, ১২৩*(১২৯)
২০১৭ চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি – ফাইনাল, ০(৩)
২০১৯ বিশ্বকাপ – সেমিফাইনাল, ১(৪)
২০২১ বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ – ফাইনাল, ৩৪,৩০
২০২২ বিশ্বকাপ – সেমিফাইনাল, ২৭(২৮)
২০২৩ বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপ – ফাইনাল ১৫ (২৬)

রোহিতের টেস্ট রেকর্ডের দিকে তাকালে ২০১৩ থেকে ২০২৩ সালের মধ্যে ৫০ টি টেস্ট ম্যাচে ৩৩৯৪ রান করেছেন ডানহাতি এই ব্যাটসম্যান। এ সময় তার গড় ছিল ৪৫.২৫। কিন্তু গত দুই বছর ধরে তাদের পারফরম্যান্সে ব্যাপক পতন হয়েছে। ২০২২ সালে দুই টেস্টের তিন ইনিংসে ৯০ রান এবং ২০২৩ সালে পাঁচ ম্যাচের সাত ইনিংসে ২৫৭ রান করেছিলেন তিনি। এই সময়ের মধ্যে, তার গড় ছিল ৩০ এবং ৩৬.৭১, যা সামগ্রিক গড়ের চেয়ে অনেক কম।

ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগের ইতিহাসে সবচেয়ে সফল অধিনায়ক হিসেবে বিবেচিত হন রোহিত শর্মা। মুম্বাই ইন্ডিয়ান্সকে পাঁচবারের চ্যাম্পিয়ন করা রোহিত গত মাসে শেষ হওয়া ১৬তম মরসুমেও বিশেষ কিছু করতে পারেননি। ১৬ ম্যাচে তিনি ২০.৭৫ এর খারাপ গড়ে ৩৩২ রান করতে সক্ষম হন। এর আগেও ফিটনেস সমস্যার সঙ্গে প্রতিনিয়ত লড়াই করে আসছিলেন তিনি।