দুই ম্যাচ হেরেও এখনো বিদায় নয় ওয়েস্ট ইন্ডিজ, এইভাবে এখনো পাওয়া যেতে পারে বিশ্বকাপের টিকিট

একদিনের বিশ্বকাপ (ODI World Cup) সূচনার পর ধারাবাহিকভাবে দু’বছর ওয়েস্ট ইন্ডিজ (West Indies) ১৯৭৫ এবং ১৯৭৯ সালে চ্যাম্পিয়ন হয়। তাদের অতীত গৌরবময় হলেও ধিরে ধিরে ক্রিকেটের মান উল্লেখযোগ্যভাবে হ্রাস পেয়েছে। এখন ওয়েস্ট ইন্ডিজ জিম্বাবুতে (Zimbabwe) ২০২৩ একদিনের বিশ্বকাপের বাছাই পর্বে অংশগ্রহণ করেছে। কিন্তু এই বছর বিশ্বকাপের মূল পর্বে পৌঁছানোর জন্য তারা রীতিমতো লড়াই করছে তারা।

বিশ্বকাপের এই কোয়ালিফায়ার (World Cup Qualifier) টুর্নামেন্টে শ্রীলঙ্কা এবং ওয়েস্ট ইন্ডিজকে অনেকে এগিয়ে রাখলেও গ্রুপ লিগের লড়াইয়ে ওয়েস্ট ইন্ডিজ এখন অনেকটাই পিছিয়ে গেছে। ওয়েস্ট ইন্ডিজ এই টুর্নামেন্টের গ্ৰুপ ‘A’-তে আমেরিকা যুক্তরাষ্ট্র (USA) ও নেপালের (Nepal) বিপক্ষে বিরাট জয় পেলেও পরবর্তী দুই ম্যাচে জিম্বাবুয়ে এমন নেদারল্যান্ডসের (Netherlands) কাছে হেরে যায়। এর ফলে ৪ পয়েন্টস সংগ্রহ তারা সুপার সিক্সে জায়গা করে নিয়ে নিলেও তাদের নেট রান রেট বাকিদের থেকে খুবই কম।

ইতিমধ্যেই ওয়েস্ট ইন্ডিজ ছাড়াও সুপার সিক্সে জায়গা করে নিয়েছে শ্রীলঙ্কা (Sri Lanka), ওমান (Oman) নেদারল্যান্ডস, জিম্বাবুয়ে এবং স্কটল্যান্ড (Scotland) । সুপার সিক্সে জিম্বাবুয়ে যদি তাদের সবকটি ম্যাচ হেরে যায়, শ্রীলঙ্কা যদি ওয়েস্ট ইন্ডিজের কাছে হেরে যায় এবং বাকি ম্যাচগুলো জিতে যায় অন্যদিকে ওমান দুটো ম্যাচ জেতে এবং নেদারল্যান্ডস ও‌ স্কটল্যান্ড একটা করে ম্যাচ জেতে তাহলে শ্রীলঙ্কা ৮ পয়েন্ট, ওয়েস্ট ইন্ডিজ ৬ পয়েন্টস এবং বাকিরা ৪ পয়েন্টেসে শেষ করবে। এই অনুযায়ী এগিয়ে গেলে ওয়েস্ট ইন্ডিজ বিশ্বকাপের মূল পর্বে জায়গা করে‌ নেবে।

এছাড়াও জিম্বাবুয়ে যদি সবকটি ম্যাচে জিতে যায় এবং শ্রীলঙ্কা যদি সব ম্যাচ হেরে যায়, তাহলে জিম্বাবুয়ে এবং ওয়েস্ট ইন্ডিজ বিশ্বকাপের মূল পর্বে প্রবেশ করবে। তবে অন্যদিকে ওয়েস্ট ইন্ডিজ যদি শনিবার স্কটল্যান্ডের কাছে সুপার সিক্সে হেরে যায় তাহলে সমস্ত আশাই শেষ হয়ে যাবে।