৫ জন এমন বোলার যারা নিজেদের আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারে একটিও নো-বল করেননি

সাম্প্রতিক সময়ে চলমান তামিলনাড়ু প্রিমিয়ার লিগের (TNPL) ম্যাচে ১ টি বলে ১৮ রান হওয়ার ঘটনা সকলকে চমকে দিয়েছে। আসলে বোলারের একের পর এক নো বলের জন্য এইরকম পরিস্থিতি তৈরি হয়। বর্তমান ক্রিকেটের সীমিত ওভারে নো বলের পরিপ্রেক্ষিতে ফ্রি-হিট চালু হওয়ায় বোলাররা সচেতনভাবে বল করার চেষ্টা করেন। তবে একটি দুটি ম্যাচ নয় সমগ্র ক্রিকেট জীবনে একটিও নো বল না করার কৃতিত্ব অর্জন করা সহজ বিষয় নয়। আমরা আজ এইরকম ৫ ক্রিকেটারদের নিয়ে আলোচনা করবো যারা তাদের ক্রিকেট জীবনে একটিও নো বল করেননি।

১) ইয়ান বোথাম (Ian Botham)

ইংল্যান্ডের কিংবদন্তি অলরাউন্ডার ইয়ান বোথাম টেস্ট ক্রিকেটে জেমস অ্যান্ডারসন (James Anderson) এবং স্টুয়ার্ট ব্রডের (Stuart Broad) পর দেশের হয়ে তৃতীয় সর্বোচ্চ উইকেট সংগ্রাহক। তিনি ক্রিকেট জীবনে ১০২ টি টেস্ট ম্যাচ ও ১১৬ টি একদিনের ম্যাচে মোট ২৮,০৮৬ টি বল করেছেন। ডানহাতি ফাস্ট-মিডিয়াম বোলার বোথাম আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে মোট ৫২৮ উইকেট তুলে নিয়েছেন। ১৯৭৬ সালে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক হওয়ার পর থেকে ১৬ বছর দীর্ঘ ক্রিকেট জীবনের মধ্যে ইয়ান বোথাম একটিও নো বল করেননি।

২) ডেনিস লিলি (Dennis Lillee)

অস্ট্রেলিয়ার টেস্ট ইতিহাসে চতুর্থ সর্বোচ্চ উইকেট সংগ্রহকারী ডেনিস লিলি। তিনি তার ক্রিকেট জীবনে মোট ৭০ টি টেস্ট ম্যাচ ও ৬৩ টি একদিনের ম্যাচ খেলেছেন। ডেনিস আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে মোট ২২,০৬০ টি বল‌ করে ৪৫৮ টি উইকেট শিকার করেন। তিনি ১৯৭১ থেকে ১৯৮৪ সাল পর্যন্ত দীর্ঘ ১৩ বছর ক্রিকেট জীবনে একজন দ্রুত গতির বোলার হওয়া স্বত্বেও একটিও নো বল করেননি।

৩) কপিল দেব (Kapil Dev)

কপিল দেব ভারতের সর্বকালের সেরা অলরাউন্ডার ও অধিনায়কদের মধ্যে অন্যতম। তিনি ভারতের হয়ে ১৩১ টি টেস্ট ম্যাচে ২৭,৭৪০ বল ও একদিনের ক্রিকেটে ২২৫ ম্যাচে ১১,২০২ টি বল করেছেন। অনিল কুম্বলে এবং রবিচন্দ্রন অশ্বিনের (Ravichandran Ashwin) পর কপিল দেব ভারতীয় টেস্ট ক্রিকেটের তৃতীয় সর্বোচ্চ উইকেট সংগ্রহকারী। তিনি আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে মোট ৬৭৮ টি উইকেট নিয়েছেন। কপিল দেব ভারতের হয়ে অধিনায়ক হিসাবে প্রথম বিশ্বকাপ জিতেছিলেন। ১৯৭৮ থেকে ১৯৯৪ সাল পর্যন্ত দীর্ঘ ১৬ বছরের ক্রিকেট জীবনে তিনি একটিও নো বল করেননি।

৪) ইমরান খান (Imran Khan)

পাকিস্তানের প্রাক্তন বিশ্বকাপ জয়ী অধিনায়ক ইমরান খান একজন অন্যতম সফল অলরাউন্ডার। এই ডানহাতি ফাস্ট বোলার পাকিস্তানের হয়ে মোট ৮৮ টি টেস্ট এবং ১৭৫ টি একদিনের ক্রিকেট ম্যাচ খেলেছেন। ইমরান খান টেস্ট ক্রিকেটে ৩৬২ টি এবং একদিনের ম্যাচে ১৮২ টি উইকেট সংগ্রহ করেন। দীর্ঘ ২১ বছর ক্রিকেট জীবনে তিনি একবারও নো বল করেননি।

৫) ল্যান্স গিবস (Lance Gibbs)

ওয়েস্ট ইন্ডিজের প্রাক্তন ক্রিকেটার ল্যান্স গিবস ডানহাতি অফ-ব্রেক স্পিনার হিসাবে প্রথম ৩০০ উইকেটের মাইলফলক ছুঁয়েছিলেন। তিনি আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ৭৯ টি টেস্ট ম্যাচে ৩০৯ টি উইকেট সংগ্রহ করেন। ল্যান্স গিবস মাত্র ৩ টি একদিনের ম্যাচ খেলেছেন তার মধ্যে মাত্র ২ উইকেট শিকার করেন। তিনি তার আন্তর্জাতিক ক্রিকেট জীবনে মোট ২৭,২৭১ টি বল ডেলিভারি করলেও একটিও নো বল করেননি।‌