IPL 2023: আইপিএলে চ্যাম্পিয়ন হওয়াকেই ক্যারিয়ারের সেরা জয় বলে জানালেন ডেভন কনওয়ে

গত সোমবার আহমেদাবাদে বৃষ্টি-বিঘ্নিত আইপিএল (IPL) ফাইনালে গুজরাট টাইটান্সের (GT) বিরুদ্ধে ১৭১ রান তাড়া করে চেন্নাই সুপার কিংস (CSK) তাদের পঞ্চম আইপিএল শিরোপা জিতেছে। তারকা অলরাউন্ডার রবীন্দ্র জাদেজা (Ravindra Jadeja) এই রুদ্ধশ্বাস ম্যাচের শেষ দুই বলে একটি ছয় এবং একটি চার মেরে পাঁচ উইকেটে চেন্নাইয়ের জয় এনে দেন। তবে নিঃসন্দেহে ফাইনালে ব্যাট হাতে ওপেনার ডেভন কনওয়ের (Devon Conway) শুরুটা হলুদ বাহিনীদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করেছিলো।

ফাইনালে চেন্নাইয়ের হয়ে কনওয়ে মাত্র ২৫ বলে ৪৭ রানের দুর্দান্ত ইনিংস খেলেন। এই গুরুত্বপূর্ণ রানের জন্য তিনি ‘প্লেয়ার অফ দ্য ম্যাচ’ পুরস্কার জিতেছিলেন। আবার অন্যদিকে ছিলো দলের‌ হয়ে আইপিএল জয়ের আনন্দ। তাই ম্যাচ শেষে কনওয়ে আইপিএল ২০২৩-এর জয়কে তার ক্যারিয়ারের ‘সবচেয়ে বড় জয়’ হিসাবে তুলে‌ ধরেন, পাশাপাশি এমএস ধোনির (MS Dhoni) নেতৃত্বাধীন দলের সাথে এখনও পর্যন্ত তার অভিজ্ঞতা ভাগ করে নেন। ৩১ বছর বয়সী এই ব্যাটসম্যান এও জানিয়েছেন যে, সমগ্র আইপিএলে টিম ম্যানেজমেন্টে তার প্রতি যে বিশ্বাস দেখিয়েছে তা তার পারফরমেন্সের সেরাটা বের করে আনতে সাহায্য করেছে।

ফাইনালে ম্যাচ শেষে কনওয়ে বলেন, “ব্যক্তিগতভাবে, আইপিএল ফাইনালে চ্যাম্পিয়ন হওয়া আমার ক্যারিয়ারের সবচেয়ে বড়ো জয়। এর চেয়ে বড়ো কিছু হতে পারে না। এর পিছনে অনেকটা কৃতিত্ব আছে সহকর্মী বাঁ-হাতি মাইক হাসির। এটা একটা বিশাল অভিজ্ঞতা। আমি ভাগ্যবান যে গত বছর আইপিএলের শেষের দিকে কয়েকটি ম্যাচ খেলার সুযোগ পেয়েছি। তাই আমি দলের চাপ এবং দল আমার কাছ থেকে কী আশা করে তার স্বাদ পেয়েছি। এছাড়াও এই আইপিএলে প্রথম খেলা থেকে দলের সমর্থন পাওয়া অবশ্যই আমাকে আমার সেরাটা দিতে এবং পুরো টুর্নামেন্ট জুড়ে আমার ছন্দ খুঁজে পেতে সাহায্য করেছে।”

নিউজিল্যান্ড ক্রিকেট দলের অনেক সমর্থক ডেভন কনওয়ের এই মতামত দেখে ক্ষুব্ধ হন এবং ২০২১ সালের বিশ্ব টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনাল জয়ের চেয়ে আইপিএলকে বেশি মর্যাদা দেওয়ার জন্য তার সমালোচনা করেছেন। পরবর্তীকালে তিনি এই বিষয়ে বলেন, “আমি মনে করি এটা আমার ক্যারিয়ারের সেরা টি-টোয়েন্টি জয়। আমি কখনোই বলিনি এটা আমার ক্রিকেট জীবনের সেরা জয়। তবে আইপিএল ২০২৩-এর চ্যাম্পিয়ন হওয়া অবশ্যই আমার ক্যারিয়ারের সেরা টি-টোয়েন্টি জয় বা অর্জন। নিউজিল্যান্ডের হয়ে টেস্ট চ্যাম্পিয়নশিপের ফাইনালে জয় আমার‌ কাছে অবশ্যই খুব বিশেষ।”