Asia Cup 2023: প্রকাশিত হল এশিয়া কাপের সময়সূচি, ৩ বার মুখোমুখি হবে ভারত-পাকিস্তান

বহুদিন ধরে জল্পনা চলছিল এশিয়া কাপ (Asia Cup 2023) নিয়ে। আজ সব জল্পনার অবসান ঘটিয়ে এগিয়ে এল এশিয়ান ক্রিকেট সংস্থা (Asian Cricket Council)। পাকিস্তান এবং শ্রীলঙ্কাতেই অনুষ্ঠিত হবে এবারের এশিয়া কাপ। ভারত এবং পাকিস্তান দুই দলের কথা ভেবেই পাকিস্তানের দেওয়া নতুন প্রস্তাবের সাথে সহমত জানালো এসিসি।

৩১ আগষ্ট থেকে শুরু হতে চলেছে এশিয়া কাপ, চলবে ১৭ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত। গতবারের মতো এবারেও মোট ছটি দল অংশগ্রহণ করবে এশিয়া কাপে। কিন্তু এবারে ওয়ানডে বিশ্বকাপ থাকার কারণে এশিয়া কাপটি খেলা হবে ৫০ ওভারে। দলগুলিকে ২ টি গ্রুপে বিভক্ত করা হয়েছে। একটি গ্রুপে রয়েছে ভারত, পাকিস্তান ও নেপাল এবং অন্য গ্রুপে রয়েছে বাংলাদেশ, শ্রীলঙ্কা ও আফগানিস্তান।

এবারের এশিয়া কাপটি মোট ১৩ টি ম্যাচে খেলা হবে। এর মধ্যে ৪ টি ম্যাচ হবে পাকিস্তানে এবং বাকি ম্যাচগুলি শ্রীলঙ্কাতে। দুটি গ্রুপ থেকেই দুটি করে চারটি দল যোগ্যতা অর্জন করবে সুপার ফোর-এ খেলার। সেই বিচারে ফাইনালে উঠবে দুটি দল। ফাইনাল ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে ১৭ সেপ্টেম্বর। যদিও এর মাঝের সময়সূচী সম্পর্কে এখনো পর্যন্ত কিছু জানায়নি এসিসি।

একাধিক ভক্তের মতে, এশিয়ার সবথেকে শক্তিশালী ক্রিকেট দল হল ভারত ও পাকিস্তান, তাই সেই হিসাবে এবার এশিয়াকাপে ৩ বার ভারত-পাকিস্তান ম্যাচ হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। যদিও গতবার এমনটা মনে হলেও তা অক্ষরে অক্ষরে মেলেনি। ফাইনালের আগেই টুর্নামেন্ট থেকে বাদ পড়েছিল ভারত। ভারত ও পাকিস্তান উভয় দলই যদি ফাইনালে প্রবেশ করে, তবেই এই টুর্নামেন্টে তাদের ৩ বার দেখা হওয়া সম্ভব।

পুরোপুরিভাবে পাকিস্তানেই হওয়ার কথা ছিল এবারের এশিয়া কাপ। কিন্তু ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ড (BCCI) সেই দেশে গিয়ে খেলবে না, তা অনেক দিন আগেই জানিয়েছে। এরপরই শুরু হয় বিভিন্ন ধরনের জল্পনা। এমনকি পিসিবি (PCB) চেয়ারম্যানও বলে বসেছিলেন, ভারত এশিয়া কাপ খেলতে পাকিস্তানে না এলে, পাকিস্তানও বিশ্বকাপ খেলতে ভারতে যাবে না।

তারপরেও ভারতীয় বোর্ডের সেক্রেটারি তথা এসিসির চেয়ারম্যান জয় শাহ (Jay Shah) বলেন, এশিয়া কাপ পাকিস্তান থেকে সরিয়ে অন্য কোনো দেশে অনুষ্ঠিত করা হোক, যা মানতে চায়নি পাকিস্তান। তাই তাদের দেওয়া প্রস্তাব অনুযায়ী পাকিস্তান এবং শ্রীলঙ্কায় অনুষ্ঠিত হবে এশিয়া কাপ। ভারতের ম্যাচগুলি খেলা হবে শ্রীলঙ্কাতে। এই সিদ্ধান্তকে সঠিক বলে মনে করে এসিসি কর্মকর্তারা।