CSK ছাড়াও খেলেছেন বিশ্বকাপ ফাইনাল, এখন রোজগারের তাগিদে বাস চালান এই ক্রিকেটার

ক্রিকেটারদের শুধুমাত্র একটা সুন্দর উত্থানের গল্পই থাকে না মাঝামাঝে আমাদের অলক্ষ্যে পতনের অদ্ভুত করুণ পরিণতীতেও পৌঁছে যান প্রিয় তারকারা। বেশিরভাগ ক্রিকেটার অবসর নেওয়ার পর খেলার সাথে সম্পর্কিত যেমন ধারাভাষ্যকার, কোচিং বা ক্রিকেট বিশেষজ্ঞ হিসাবে কাজ করতে পছন্দ করেন। কিন্তু একসময়ের চেন্নাই সুপার কিংসের (CSK) অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনির (MS Dhoni) সতীর্থ ক্রিকেটার এখন জীবনের এমন মোড়ে এসে দাঁড়িয়েছেন যে তিনি বাস চালক হিসাবে জীবিকা নির্বাহ করতে বাধ্য হচ্ছেন।

প্রাক্তন শ্রীলঙ্কান ডান হাতি অফ স্পিনার সুরজ রন্দিভ (Suraj Randiv) একসময় আইপিএলে ধোনির নেতৃত্বে চেন্নাই সুপার কিংসের হয়ে খেলেছেন। এমনকি তিনি দেশের হয়েও আইসিসির সর্বোচ্চ টুর্নামেন্টে একদিনের বিশ্বকাপেও প্রতিনিধিত্ব করেছেন। কিন্তু এখন জীবনের অদ্ভুত পরিহাসে সুরজ এমন এক পরিস্থিতিতে পৌঁছেছেন যে অস্ট্রেলিয়ায় তিনি বাস চালানোর মতো কঠিন কাজ বেছে নিয়েছেন।

২০০৯ সালে শ্রীলংকার কিংবদন্তি স্পিনার মুথাইয়া মুরলীধরণের (Muttiah Muralitharan) পরিবর্তে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে অভিষেক করেন সুরজ রন্দিভ। প্রায় ৭ বছর ২০১৬ সাল পর্যন্ত তিনি দেশের হয়ে একাধিক গুরুত্বপূর্ণ ম্যাচে অংশগ্রহণ করেছেন। এমনকি ২০১১ বিশ্বকাপ যে বছর ভারত ধোনির নেতৃত্বে দ্বিতীয়বারের মতো চ্যাম্পিয়ন হয় সুরজ রন্দিভ দ্বিতীয় স্থান অধিকারী দেশ শ্রীলঙ্কার প্রতিনিধিত্ব করেছিলেন। কিন্তু বার বার চোটের সমস্যায় পড়ায় তিনি ৩১ বছর বয়সে অবসর নিতে বাধ্য হন।

এই শ্রীলঙ্কার স্পিনারকে ২০১১ সালে চেন্নাই সুপার কিংস দলে নেয়। সে বছর তিনি ধোনির নেতৃত্বে চেন্নাইয়ের হয়ে ৮ ম্যাচে ৬ টি উইকেট নিয়েছিলেন। তার পরের বছরই চেন্নাই তাকে দল থেকে ছেড়ে দেয়, এরপর সুরজ রন্দিভের আর আইপিএল খেলা হয়নি। ক্রিকেট ছাড়ার পর তিনি একরাশ অভিমান নিয়ে পরিবারসহ অস্ট্রেলিয়ার মেলবোর্নে চলে যান। সেখানেই এখন সুরজ বাস চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করছেন।

তবে অস্ট্রেলিয়া গিয়ে সুরজ সুখেই সময় কাটাচ্ছেন বলে তিনি জানিয়েছেন। এখন আর তার ক্রিকেট দেখা হয় না। অভিযোগ নয় বুকের ভিতর একরাশ অভিমান জমে আছে। শ্রীলংকার বর্তমান রাজনৈতিক ও অর্থনৈতিক পরিস্থিতি দেখে সুরজের মনে হয় তিনি ভালই করেছেন অস্ট্রেলিয়ায় চলে এসে। তার ছেলে মেয়েকে প্রতিষ্ঠিত করাই এখন তার জীবনের মূল লক্ষ্য।